ধূমপান ত্যাগের কিছু পরামর্শ

ধূমপানের ক্ষতি সম্পর্কে কম বেশি সবাই জানেন। প্রতি বছরই সারা বিশ্বে এই ধূমপানের কারণে মারা যাচ্ছে অসংখ্য মানুষ। শুধু ধূমপান করার কারণেই যে মানুষ মরছে তা কিন্তু নয়, অধূমপায়ীরাও আক্রান্ত হচ্ছেন নানান রোগে অন্যের ধূমপানের কারণে।

শিশুদের মধ্যেও ধূমপানের বেশ প্রভাব পড়ে থাকে। বর্তমানে অনেক শিশুই নানা রোগ নিয়ে জন্ম নিচ্ছে পিতা-মাতার ধূমপানের কারণে। এতসব ক্ষতিকর দিক দেখে ধূমপান ছেড়ে দেয়ার কথা ভাবলেও কেন যেন এই বাজে অভ্যাসটি ছাড়তে গিয়েও ছাড়তে পারেন না অনেকে।

তবে ধূমপান ছাড়ার বেশকিছু সহজ পদ্ধতি বা পরামর্শ আছে। যা আপনাকে দ্রুত ধূমপান ত্যাগ করতে সাহায্য করবে। চলুন জেনে নেয়া যাক ধূমপান ত্যাগের কয়েকটি উপায় সম্পর্কে-

লেবু : ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই ফলটি খাবারের স্বাদ বাড়াতে ব্যবহৃত হলেও এর ওষুধি গুণের কোনো শেষ নেই। সিগারেটের অভ্যাস দূর করতে কার্যকর একটি উপায় হতে পারে লেবু খাওয়া। যখনই সিগারেট খাওয়ার ইচ্ছে করবে তখনই এক টুকরা লেবু মুখে পুড়ে দিন। দেখবেন আস্তে আস্তে সিগারেটের বদ অভ্যাস দূর হয়ে গেছে। এর সঙ্গে জোয়ান মিশিয়ে নিতে পারেন কয়েকটি। গোটা ছয়েক জোয়ান আর এক টুকরো লেবু আপনাকে সিগারেট থেকে দূরে রাখতে যথেষ্ট।

এড়িয়ে চলুন কিছু খাবার : সিগারেট ছাড়তে চাইলে বেশ কিছু খাবার গ্রহণের অভ্যাস বাদ দিতে হবে। বিশেষ করে ক্যাফেইন, অ্যালকোহল এবং চিনির মতো ক্ষতিকারক খাবারগুলো এড়িয়ে চললে সিগারেট দ্রুত ছাড়তে পারবেন। এই খাবারগুলো ক্ষেত্রবিশেষে সিগারেটের চেয়েও বেশি ক্ষতি করে থাকে মানব দেহের জন্য। চিনি অনেক ধরনের ক্যানসারের কারণ।

ফল খান বেশি : ধূমপান ছাড়তে চাইলে বেশি বেশি ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ুন। ফলে থাকা পুষ্টি উপাদান আপনাকে সিগারেটের তৃষ্ণা থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করবে। এছাড়াও সুস্থ থাকার জন্য বেশি করে ফল খাওয়া উচিত। মৌসুমি ফল খেলে শরীর অনেক বেশি সতেজ থাকে। ধূমপান দূর করতে চাইলে মৌসুমি ফল ছাড়াও আপেল, শশা, কলা এবং পেয়ারা বেশ কার্যকরী।

পুষ্টিকর খাবার : ধূমপান ত্যাগ করতে চাইলে আরেকটি অভ্যাস বেশ কাজে দেয়। ধূমপান ছেড়ে দিয়ে নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেতে পারেন। এতে করে শরীরে হরমোনের ঘাটতি হবে না । ফলে ধূমপান করার ইচ্ছাও কমে আসবে ধীরে ধীরে। প্রচুর পরিমাণে শাক সবজি, দুধ, ঘি এবং ডিম খেলে ধূমপানের মতো বদ অভ্যাস দ্রুত ত্যাগ করা যায়।

দূরে থাকুন সিগারেট খাওয়া বন্ধু থেকে : আপনাকে বিশ্বাস করতে হবে আপনি সিগারেট ছাড়ছেন। এ জন্য এমন কঠিন কিছু কাজ করতে হবে। যাদের সঙ্গে সিগারেট খান বেশি সিগারেট ছেড়ে দেয়া অবধি তাদের থেকে কিছুটা দূরত্ব বজায় রাখুন। সম্ভব হলে তাদের বুঝিয়ে বলুন আপনি সিগারেট ছেড়ে দিয়েছেন। এতে করে তারাও আপনাকে আর সিগারেট খেতে উৎসাহিত করবে না।

মনকে ব্যস্ত রাখুন : যখনই আপনার সিগারেট খেতে ইচ্ছা করবে সে সময় আপনার পছন্দের অন্য কোনো কাজ করতে চেষ্টা করুন। এতে করে সেই কাজের প্রতি মনোযোগ দেয়ায় আপনার সিগারেট খাওয়ার ইচ্ছে হারিয়ে যাবে। ধীরে ধীরে এই অভ্যাসটি চর্চা করুন। এতে বেশ ভালো ফল পাবেন সিগারেট ছেড়ে দেয়ার ক্ষেত্রে।

টাকা জমান : সিগারেটের পেছনে দৈনিক যে টাকা খরচ করতেন সিগারেট না খেয়ে সেই টাকাটা জমানোর অভ্যাস করুন। বেশকিছু টাকা জমে গেলে সেই টাকা দিয়ে কোনো একটি ভালো কাজ করুন। এই বর্ষায় যারা সিগারেট ছেড়ে দেয়ার পণ করেছেন তারা টাকা জমিয়ে বৃক্ষ রোপণ করতে পারেন। এতে করে মানসিক প্রশান্তি আসার পাশাপাশি পরিবেশের প্রতি কিছু দায়বদ্ধতা কমবে।

News Reporter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *